শিরোনাম

রুশ সেনারা ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভে ঢুকে পড়েছে। স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

 

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী খারকিভের আঞ্চলিক প্রশাসনের প্রধান ওলেগ সিনেগুবোভ বলেছেন, রাশিয়ার হালকা কিছু সামরিক যান শহরের ভেতর ঢুকেছে।

 

ওলেগ সিনেগুবোভ এ কথা জানানোর আগে ভিডিও ফুটেজে ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় এই শহরে রাশিয়ার সামরিক যান চলাচল করতে দেখা গিয়েছিল।

 

শহরের কেন্দ্রস্থলে রুশ সৈন্যদের দেখা যাচ্ছে জানিয়ে আজ রবিবার বাসিন্দাদের ঘরে থাকার আহ্বান জানান খারকিভের আঞ্চলিক প্রধান ওলেগ সিনেগুবো।

 

ওলেগ সিনেগুবোভ বলেন, ‘গোপন আশ্রয়স্থল থেকে বের হবেন না। শত্রুপক্ষকে ধ্বংস করছে ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনী। বেসামরিক মানুষকে রাস্তায় বের না হতে বলা হচ্ছে।’

 

ইউক্রেনের সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী দেশটির আরও একটি শহর দখল করেছে রাশিয়া। দক্ষিণাঞ্চলীয় এই শহরের নাম নোভা কাখোভকা। শহরটি ছোট তবে কৌশলগতভাবে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর। শহর দিয়ে পানিপথে ক্রিমিয়া যাওয়া যায়। ২০১৪ সালে সামরিক অভিযান চালিয়ে ক্রিমিয়া দখলে নিয়েছিল রাশিয়া।

 

শহরের মেয়র ভলোদিমির কোভালেঙ্কো বলেছেন, রাশিয়ার সেনারা শহরের নির্বাহী কমিটির দখল নিয়েছে এবং সব ভবন থেকে ইউক্রেনের পতাকা নামিয়ে দিয়েছে।

 

আরও পড়ুন

মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধের কৌশলে ইউক্রেনে ‘হটলাইন’ চালু

মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধের কৌশলে ইউক্রেনে ‘হটলাইন’ চালু

বিজ্ঞাপন

 

এদিকে আজ মস্কো দাবি করেছে, রাশিয়ার সেনারা ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় খেরোশেন ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় বারদিয়ানস্ক শহরের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে।

 

রুশ সংবাদ সংস্থাগুলোয় রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ইগোর কোনাশেঙ্কোভের একটি বিবৃতি প্রকাশিত হয়েছে। বিবৃতিতে ইগোর কোনাশেঙ্কোভ বলেন, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় খেরোশেন ও বারদিয়ানস্ক শহর দুটিও পুরোপুরিভাবে অবরুদ্ধ করে ফেলেছে রাশিয়ার সেনারা।

পোষ্টটি লিখেছেন: Staff Reporter

এই ব্লগে 236 টি পোষ্ট লিখেছেন .

Leave a Reply

Your email address will not be published.